Trending

Tuesday, 30 April 2019

মেক্সিকোর পুতুলের দ্বীপ

মেক্সিকোর পুতুলের দ্বীপ:





হ্যা! হেডলাইন টা ঠিকই পড়েছেন মেক্সিকো তে এমন এক দ্বীপ আছে যার বাসিন্দা কয়েক হাজার অদ্ভুত চেহারার পুতুল। মেক্সিকোর এই দ্বীপ টির নাম "ইলহা ডি লা মুনেকাস" যা বিশ্ববাসীর কাছে পতুলের দ্বীপ বা Doll Island নামেই পরিচিত। কিন্তু কি করে এই দ্বীপে এলো এতো পুতুল তার জন্য আমাদের উকি দিতে হবে ইতিহাসের পাতায়।

১৯৯০ সালে একটি খাল খনন করার সময় শ্রমিক দের নজরে আসে এই নির্জন দ্বীপ টি। দ্বীপ টির বর্তমান অবস্থার জন্য দায়ী মেক্সিকো সিটির এক নাগরিক নাম ডন জুলিয়ান ব্যারেরা তিনি ১৯ শতকের কোনো এক সময় এই দ্বীপে বসবাস করতে আসেন। তার আসার কিছুদিন পরেই এখানে ছুটি কাটাতে আসা এক পরিবারের ছোট্ট একটি কন্যা সন্তানের মৃত্যু হয় জলে ডুবে। বাচ্চাটির মৃত্যুর কয়েকদিন পর জুলিয়ান দ্বীপে হেটে বেড়ানোর সময় জলে একটি পুতুল ভাসতে দেখেন ঠিক সেই স্থানে যেখানে ঐ বাচ্চা মেয়েটির মৃত্যু হয়েছিল।




জুলিয়ান মনে করেন পুতুলটিকে গাছের ডালে ঝুলিয়ে রাখলে বাচ্চাটির অতৃপ্ত আত্মার মুক্তি ঘটবে তিনি পুতুলটিকে গাছের ডালে ঝুলিয়ে দেন কিন্তু এর পরের দিন থেকে জুলিয়ান বাড়ির বাইরে সবর্ত্র অদ্ভুত চেহারার পুতুল দেখতে পান এবং সব কটি কেই তিনি গাছে ঝুলাতে থাকেন এইভাবে এই দ্বীপে পুতুলের সংখ্যা ক্রমেই বাড়তে থাকে। এর কয়েক বছর পর জুলিয়ানের মৃত্যু ঘটে জলে ডুবে ঠিক সেই স্থানে যেখানে বাচ্চা মেয়েটি মারা গিয়েছিল কিছু মৎসজীবি তার দেহ উদ্ধার করেন।

এর পর থেকেই এই নির্জন দ্বীপে চিরকালীন বাসিন্দা হয়ে ওঠে অদ্ভুত চেহারার কয়েক হাজার পুতুল। এই সমস্ত ঘটনা জানা যায় জুলিয়ানের লিখে যাওয়া ডাইরির পাতা থেকে। এই দ্বীপ বর্তমানে টুরিস্ট স্পট, এখানকার জেলে দের মতে তারা  এখনো দ্বীপের পাশ দিয়ে নৌকা নিয়ে যাওয়ার সময় শুনতে পান পুতুলদের ফিশফিশ কথা।

No comments:

Post a comment