Trending

Friday, 31 May 2019

স্বর্ণাসনে সম্পদের দেবী





আজ আমরা আলোচনা করতে চলেছি সম্পদশালী দেশ ভারতবর্ষে র সম্পদশালী স্বর্ণ মন্দির এর সম্পর্কে। না এটি অমৃতসরের স্বর্ণমন্দির নয়। আমাদের আজকের আলোচ্য বিষয় শ্রী পুরম স্বর্ণমন্দির তামিলনাড়ু।


















শ্রীপুরম স্বর্ণমন্দির  তামিলনাড়ু রাজ্যের থিরুমালাই কোডি গ্রামে অবস্থিত ‌। এই মন্দিরটি ভেলোর থেকে মাত্র ৮ কিলোমিটার দূরে। তিরুপতি  বালাজি মন্দির থেকে এই মন্দিরের দূরত্ব ১২০ কিলোমিটার। চেন্নাই থেকে ১৪৫ কিলোমিটার দূরে এই মন্দিরটি, আবার পন্ডিচেরি থেকে হিসেব করলে ১৬০ কিলোমিটার দূরত্ব পড়ে। এবং ব্যাঙ্গালোর থেকে ২০০ কিলোমিটার।




দূরত্ব যাই হোক না কেন মন্দিরের ঐশ্বর্য পর্যটকদের চোখ ধাঁধিয়ে দেয়। এই মন্দিরটি ১৫০০ কেজি সোনা দিয়ে তৈরি। মূল মন্দিরটি পরীখা দিয়ে ঘেরা। মূল মন্দিরের বাইরে অনেকখানি দালান এলাকা। এই বারান্দা দিয়ে যাবার সময় মূল মন্দিরটির সৌন্দর্য যেন আরও বেড়ে ওঠে। পুরো মন্দির চত্বর টি মনোরম প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জন্য বিখ্যাত। সুদৃশ্য বাগান, ফোয়ারা, বিভিন্ন দেবদেবীর মূর্তি, আধ্যাত্বিক নির্দেশ সম্বলিত ফলকনামা দিয়ে মন্দিরের চারপাশটা সাজানো হয়েছে। মন্দির সংলগ্ন নাট মন্দিরে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের সময় আধ্যাত্বিক নৃত্যগীত পরিবেশিত হয়ে থাকে। উৎসবের সময় ভক্তদের মধ্যে ভোগ বিতরণ করা হয়।





এ মন্দিরটি স্থাপন করেছিলেন শ্রী নারায়নী আম্মা ট্রাস্ট। মন্দিরে মূলত পূজা করা হয় সম্পদশালী দেবী লক্ষ্মী কে। এছাড়াও মা দুর্গা এবং দেবী সরস্বতী পুজো হয়ে থাকে। মন্দির পরিদর্শনে প্রত্যেক দিন প্রচুর সংখ্যক ভক্ত আসেন। কেউ বা শান্তি খুঁজে পান কেউ খ্যাতি আবার কেউবা খুঁজে পান দেবতার মহত্ব। মন্দির কর্তৃপক্ষ শুধুমাত্র আধ্যাত্মিক কাজকর্মে নিজেদের সীমাবদ্ধ রাখেননি। বিভিন্ন সেবামূলক কাজ যেমন দাতব্য চিকিৎসালয়, বিদ্যালয়, দুস্থ মানুষদের সেবা ইত্যাদি কাজে নিজেদের নিয়োজিত রেখেছেন।





দক্ষিণ ভারত ভ্রমণের সময় আমরা প্রায় সকলেই তিরুপতি বালাজি মন্দির দর্শন করি। কিন্তু ভেলুর এর কাছে শ্রীপুরাম স্বর্ণ মন্দিরের কথা আমরা অনেকে জানিনা। তাই এবার দক্ষিণ ভারত ভ্রমণে গেলে একবার অবশ্যই এই স্বর্ণ মন্দির দর্শন করবেন। 

No comments:

Post a comment