Trending

Friday, 10 May 2019

নরকের দরজা!!




আমাদের পৃথিবী তে এমন অনেক স্থান আছে যাদের রহস্য আজও উন্মোচিত হয় নি। জনসংখ্যা ৭০০ কোটির ও বেশি হওয়া সত্ত্বেও এখনো এমন অনেক জায়গা আছে যেখানে মানুষের পায়ের ছাপ ও পড়ে নি। এতো কিছু বলার একটাই কারণ এখন এমন এক জায়গার সম্বন্ধে আপনাদের বলবো যা নরকের দরজা নামে পরিচিত। পৃথিবীর বুকে সাক্ষাৎ নরক দর্শন ঘটবে এই জায়গায় এলে।



তুর্কমেনিস্তান এর আহাল প্রদেশের অবস্থিত জনমানব হীন শুষ্ক প্রান্তর যার নাম "দারওয়াজা" পারশী শব্দ দারওয়াজা এর মানে দরজা বা দ্বার। এই জায়গার কে নরকের দরজা বা Door of Hell নামেও ডাকা হয়। এখানে বিশাল শুষ্ক মালভূমির মাঝেই রয়েছে এক ২০০ ফুট চওড়া গর্ত যার ভিতর সর্বদা জ্বলেছে আগুনের লেলিহান শিখা। এই আগুন নাকি গত ৪৮ বছর ধরে এইভাবেই জ্বলছে। কিন্ত কেন এমন টা হলো বা এর পিছনে লুকিয়া থাকা বৈজ্ঞানিক যুক্তি টাই বা কি আসুন জেনে নিই।

এই প্রান্তর হলো বিশাল পেট্রোলিয়াম এর ভাণ্ডার ১৯৭১ সালে তেলের খোঁজে সোভিয়েতের একটি সংস্থা এখানে আসে ও মেশিনের সাহায্যে ভূগর্ভস্থ তেলের সন্ধান চালায়। কিন্তু এই  প্রক্রিয়া চলাকালীন ঘটে বিপত্তি ভূপৃষ্ঠ এ ধস নেমে তৈরি হয় ২০০ ফুট চওড়া গর্তের এবং তা থেকে নির্গত হতে থাকে সালফার, মিথেনের মতো বিষাক্ত গ্রিনহাউস গ্যাস। ইঞ্জিনিয়ার রা সিদ্ধান্ত নেন এই গর্তকে এমন খোলা অবস্থায় রাখলে বিষাক্ত গ্যাস ছড়িয়ে পড়বে যা খুবই মারাত্মক ব্যাপার। তাই তারা এই গর্তে আগুন লাগিয়ে দেয় যাতে আগুনে পুড়ে গ্যাস শেষ হয়ে যায়।



কিন্তু অবাক করা ব্যাপার হলো আগুন লাগানোর পড়েও এই গ্যাস ফুড়োয় নি ১৯৭১ সালে লাগানো সেই আগুন আজও জ্বলছে। আপনি হয়তো বুঝতেই পারছেন যে কতো বড়ো গ্যাসের ভান্ডার ছিলো ঐ অঞ্চলে। ৪৮ বছর ধরে জ্বলা এই আগুন দেখতে ভিড় জমান দেশ বিদেশের বহু পর্যটকরা। এই ধরনের দৃশ্য বিশ্বের অন্য কোথাও পাওয়া যাবে না এই জায়গা কে "নরকের দরজা" নামে অভিহিত করা হয়।

No comments:

Post a comment