Trending

Thursday, 23 May 2019

অন্যকে ভোট দেওয়াতে গিয়ে নিজেদের আর ভোট দেওয়া হলো না




দেড় মাস ধরে দীর্ঘ সাত দফা নির্বাচন শেষ হল। প্রায় প্রকাশিত হয়ে গেছে ভোটের ফলাফল। এতদিন ধরে কঠোর পরিশ্রম করে যারা সমগ্র দেশের মানুষকে সুনিশ্চিত ভাবে ভোট দেয়ার সুযোগ করে দিলেন তাদের বেশিরভাগের কপালে নিজেদের ভোট দেয়ার সুযোগ টুকু হলো না।

হ্যাঁ রাজ্যের প্রিসাইডিং অফিসার, পোলিং অফিসার সহ বুথ কর্মী এদের সকলের চিত্রটা প্রায় একই রকম। কিন্তু এমনটা হওয়ার কারণ কি? এনারা জানিয়েছেন ,নাতো পেয়েছেন ইলেকশন ডিউটি সার্টিফিকেট আর না পোস্টাল ব্যালট তাদের বাড়িতে এসেছে। তাই ভোট পর্বের শেষ দিনেও তারা নিজেদের ভোট দিয়ে উঠতে পারেননি।

যারা ভোট কেন্দ্রে থাকে তারা উপরোক্ত দুটি পদ্ধতির মাধ্যমে ভোট দিতে পারেন। কিন্তু এ দুটি পদ্ধতির কোনটাই সুযোগ পাননি বলে অভিযোগ। বারাসাতের কদম্বগাছির শিক্ষক হিমাংশু দেবনাথ জানান তার ভোটের ডিউটি পড়েছিল হিঙ্গলগঞ্জ পূর্ব পারঘুমটি স্কুলে। কাজ সেরে বাড়িতে ফিরে এসে দেখেন কোন পোস্টাল ব্যালট বা ইলেকশন ডিউটি সার্টিফিকেট আসেনি ঘরে। ডাকঘরে গিয়ে খোঁজ নিলে জানতে পারেন যত পোস্টাল ব্যালট ছিল সবই বিলি হয়ে গেছে আর নতুন কোন পোস্টাল ব্যালট নেই। একই অভিযোগ জানান বারাসাত নবপল্লী আরেক শিক্ষক খোকন বনিক। তার ভোটের ডিউটি পড়েছিল বেলঘড়িয়ার একটি স্কুলে ।তিনিও এই একই কারণে নিজের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেননি।

হিমাংশু বাবু জানান তাদের শিক্ষকদের একটি ফেসবুক গ্রুপ আছে। আর সেই গ্রুপের মাধ্যমে তিনি জানতে পেরেছেন যে শুধু তারাই নয় এরকম আরো অনেক শিক্ষক, যারা ভোটের ডিউটিতে ছিল তারাও একই ভাবে নিজেদের ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। কিন্তু ঠিক কার ভুলে কি কারনে এমন ঘটনা ঘটল এর কোন সদুত্তর পাওয়া যায়নি।

No comments:

Post a comment