Trending

Tuesday, 14 May 2019

যেখানে ইতিহাস কথা বলে





মায়াপুর নবদ্বীপ তো আমরা সবাই ঘুরতে গেছি। কিন্তু মায়াপুরের কাছে যে এমন একটি ঐতিহাসিক স্থাপত্য একাকী পড়ে আছে তার কথা আমরা কজন জানি।




আজকে আমি আলোকপাত করতে চলেছি সেন বংশের দ্বিতীয় রাজা বল্লাল সেনের স্থাপত্য বল্লাল ঢিপি র উপর। নদিয়া জেলা র মায়াপুরের কাছে বামন পুকুর গ্রামে গেলে দেখা মিলবে এই বল্লাল ঢিপি র। অনেকেই বলেন এটা নাকি বল্লাল সেন এর পিতা বিজয় সেন অর্থাৎ সেন বংশের প্রতিষ্ঠাতা সম্রাটের রাজধানীর একটি অংশ। কারণ বিজয় সেনের রাজধানী ছিল নবদ্বীপে। একাদশ শতাব্দীতে মদন পালের রাজত্বকালে র পর সেন বংশের উত্থান ঘটে। যদিও সেন রাজাদের আদি বাসস্থান ছিল কর্নাটকের মহীশুরে‌‌। সেন রাজাদের সাম্রাজ্যঃ বিস্তৃত ছিল পূর্ববঙ্গ থেকে পশ্চিমে মগধ উত্তর দিনাজপুর থেকে দক্ষিনে বঙ্গোপসাগর এবং বাংলাদেশের বিক্রমপুর পর্যন্ত। সেন রাজারা প্রায় 100 বছর রাজত্ব করেছিলেন ‌। অবশেষে 1202 সালে বখতিয়ার খিলজী লক্ষণ সেনের রাজধানী আক্রমণ করলে সেন বংশের পতন ঘটে।




এবার আমাদের মূল আলোচ্য বিষয় আসা যাক। বল্লাল সেন এর ঢিপি র আয়তন 1300 বর্গফুট। ভারতীয় পুরাতাত্ত্বিক বিভাগ দুবার খনন কার্য চালিয়ে এই ঢিপি র অনেকাংশ উদ্ধার করেছে। যদিও এখনো অনেক অজানা তথ্য মাটির নিচে লুকিয়ে আছে ‌‌। 1982-83 এবং 1988-89 এই দুই বারে খনন কার্য এঅনেক কিছু ই আমাদের সামনে উঠে এসেছে। এখান থেকে উদ্ধার হওয়া পোড়া মাটির মানুষ, জীবজন্তু, তামার লোহার বিভিন্ন জিনিস সংরক্ষিত আছে ভারতীয় মিউজিয়ামে। পুরাতাত্ত্বিক দের মতে এখানকার ইট এর গঠন এবং প্রাচীর নির্মাণ প্রণালী বলে দেয় এটি রাজবাড়ী অংশ। বিজাপুর অর্থাৎ বল্লাল সেনের ঢিবি যে অঞ্চলে আছে সেটি সেই সময়কার অত্যন্ত আধুনিক একটি শহর ছিল। এখানকার পাঁচিল গঠন পদ্ধতি, জল নিকাশি ব্যবস্থা এর প্রমাণ দেয়। মোটের উপর বল্লাল সেনের ঢিবি পরিদর্শন করলে নিজের অজান্তেই যেন চলে যাওয়া যায় সেই হাজার বছর আগে র সমৃদ্ধ বঙ্গভূমি তে।

No comments:

Post a comment