Trending

Monday, 24 June 2019

ভোটের আগুন ছড়ালো সমুদ্রসৈকতে



রবিবার থেকে তিন দিনের জন্য ১৪৪ ধারা জারি করা হলো শংকরপুর মৎস্য বন্দরে। লঞ্চ ট্রলার মালিক এবং হাজার হাজার সাধারণ মৎস্যজীবী অত্যন্ত বিপদের মধ্যে পড়েছেন এ ঘটনায়। ট্রলার গুলি শংকরপুর ছেড়ে চলে যেতে বাধ্য হচ্ছে।

অশান্তির সূত্রপাত সেই একই ভাবে। তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ। তবে এখানে জেটি দখলকে কেন্দ্র করে এবং সেখানকার বরফ পরিবহন শ্রমিক সংগঠনের মধ্যে প্রথম গণ্ডগোলের সূত্রপাত হয়। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার জন্য প্রশাসন শনিবার উভয় পক্ষের নেতৃত্বদের ডেকে একটি বৈঠক করেন। কিন্তু এতেও সমস্যার কোনো সমাধান হয়নি।

২০১৭ সাল থেকে শংকরপুরের তিনটি যে জেটি র ২ টি তে বরফ পরিবহনে কাজ করতো বিজেপি শ্রমিক সংগঠন। কম পরিমাণে শ্রমিক থাকায় বাকি একটিতে বরফ পরিবহনের কাজ হয়েছিল তৃণমূল শ্রমিক সংগঠনের। কিন্তু এবারে সেই জেটির আটটি সারির পাঁচটি দখল করে নিয়েছে বিজেপি। শনিবার সকালে তৃণমূলের শ্রমিক সংগঠন গিয়ে নিজেদের এলাকা দখলমুক্ত করতে গেলে বিজেপির সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ বাধে। উভয়পক্ষে কথা কাটাকাটি থেকে হাতাহাতি লেগে যায়।   খবর যায় মন্দারমনি কোস্টাল পুলিশে। বন্দরে অচলাবস্থা কাটাতে তাড়াতাড়ি দুই দলের নেতাদের নিয়ে বৈঠকে বসে যান রামনগর এক ব্লকের বিডিও আশিষ রায় ও বন্দরে স্পেশাল অফিসার বিশ্বরূপ বসু।

বিজেপির দাবি তৃণমূলের শ্রমিক কম থাকলেও তারা গোটা একটি জেটি দখল করে নিয়ে আছেন ,অথচ তাদের শ্রমিকেরা সমান মজুরী পাচ্ছেন না। অপরপক্ষে তৃণমূল দাবি করছে বিজেপি আরো নতুন শ্রমিক নিয়োগ করে এই ঝামেলা বাড়িয়েছে। এইস অশান্তির জেরে বন্দর এলাকায় রবিবার থেকে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে পর্যটকদের প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

No comments:

Post a comment