Trending

Friday, 28 June 2019

দক্ষিণ ভারতের মতো নিদারুন কষ্টের শিকার পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুর



২০২০ সালের মধ্যে দক্ষিণ ভারতের কিছু এলাকাসহ দিল্লি অর্থাৎ ভারতের বেশ কয়েকটি অঞ্চলে প্রবল জল সংকট দেখা দেবার একটি আশঙ্কার কথা কয়েক দিনের মধ্যে বেশ ভাইরাল হয়েছে। তবে এরই মধ্যে মারাত্মক ঘটনা ঘটে গেল দক্ষিণ দিনাজপুরে। মাটির জলস্তর শুকিয়ে যাওয়ায় এলাকাটির টিউবওয়েল গুলি দিয়ে জল ওঠে না ।একমাত্র সরকারি ট্যাপ ছিল ভরসা। কিন্তু গত দুদিন ধরে সেটিও বন্ধ। জল সমস্যা মেটানোর জন্য চার বছর আগে প্রশাসনের তরফ থেকে পিএইচ এর জলাধার তৈরি করার কথা হয়েছিল ঠিকই, কিন্তু আজও তা চালু হয়নি। এই মুহূর্তে তীব্র গরমে নিদারুণ কষ্টে রয়েছেন দক্ষিণ দিনাজপুরের বাসিন্দারা।  

তীব্র জল সংকটে প্রশাসনের নিরাপত্তা দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়েন সাধারণ মানুষ। দক্ষিণ দিনাজপুরের দৌলত পুর এলাকার মহিলারা দৌলতপুর বাসস্ট্যান্ডের কাছে 512 নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করেন ড্রাম, কলসি ,বালতি ইত্যাদি নিয়ে।

তাদের দাবি ছিল জল সরবরাহ ব্যাবস্থা শুধু ঠিক করলে হবে না, এলাকার টিউবওয়েল গুলিকেও ঠিক করতে হবে। দৌলত পুরের বাসিন্দা এই অবরোধ করলেও আশেপাশে মহাম্মদপুর সহ আরও পাঁচটি ব্লকের বাসিন্দারা এই অবরোধের সামিল হন। তীব্র যানজট সৃষ্টি হয় ৫১২নম্বর জাতীয় সড়কে ।আটকে পড়ে বাস লরি সহ বিভিন্ন যান। স্থানীয় পুলিশ
বাহিনী আসলেও তারা অবরোধ তুলতে ব্যর্থ হয়। ব্লক আধিকারি ঘটনাস্থলে পৌঁছালে স্থানীয় বাসিন্দারা তাকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। অবশেষে ঘন্টা তিনেকের চেষ্টায় অবরোধ তোলা হয়।



স্থানীয়  এক বাসিন্দা জানান কয়েক বছর ধরেই টিউবয়েল গুলি খারাপ ।একমাত্র সরকারি কলের জলই তাদের ভরসা, তাও দুদিন ধরে জল আসছে না। এই তীব্র গরমে নিদারুণ কষ্টে আছেন তারা।

বংশীহারী ব্লক আধিকারিক শুভদীপ দাস জানিয়েছেন মাটির জলস্তর নেমে যাওয়াতে এই বিপত্তি ঘটেছে। গত দুদিন ধরে পিএইচ এর পাম্প মেশিনে বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকার জন্য জল আসেনি। তবে আজকে তিনি নিজে গিয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ ব্যবস্থা ঠিক করিয়েছেন। 

No comments:

Post a comment