Trending

Wednesday, 26 June 2019

চলচ্চিত্র ও রাজনীতির মধ্যে বিশেষ কোন পার্থক্য নেই



নবাগত সাংসদ মিমি চক্রবর্তী। চলচ্চিত্র জগতে বেশ নামকরা অভিনেত্রী তিনি। ইতিমধ্যে তার ঝুলিতে  রয়েছে বেশ কয়েকটি হিট ছবি। স্বনামধন্য পরিচালক ঋতুপর্ণ ঘোষের গানের ওপারে সিরিয়ালের মধ্য দিয়ে আমরা প্রথম মিমি চক্রবর্তীকে পাই। তারপর থেকে একের পর এক হিট ছবি তার জনপ্রিয়তা বাড়িয়েছে। আর বর্তমানে তিনি ভারতের সংসদ। 

সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে যাদবপুর কেন্দ্র থেকে আড়াই লক্ষ ভোটে জিতেছেন মিমি। মিমির জনপ্রিয়তার কাছেই হয়তো দক্ষ রাজনীতিবিদ বামফ্রন্টের বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য অথবা বোলপুরের সাংসদ অনুপম রায় মাথা তুলে দাঁড়াতে পারেননি।

তবে চলচ্চিত্র জগৎ থেকে রাজনীতির ময়দানে প্রবেশ করে মিমির বক্তব্য চলচ্চিত্র জগৎ আর রাজনীতির মধ্যে বিশেষ কোন পার্থক্য নেই। দুটি জায়গাতেই কাজ করতে হয় মানুষের জন্য। মঙ্গলবার তিনি সংসদ ভবনে উপস্থিত ছিলেন। বুধবার নিজের বক্তব্য পেশ করবেন মিমি। তিনি জানিয়েছেন বুধবার তিনি মানুষের সমস্যার কথা তুলে ধরবেন সংসদ ভবনে।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সৌজন্যে চলচ্চিত্র জগতের অনেক অভিনেতা-অভিনেত্রী রাজনীতির ময়দানে এসেছেন। এবারেও মিমির সঙ্গে এসেছেন তার সহকর্মী বন্ধু নুসরাত জাহান। তিনিও বসিরহাট কেন্দ্রে থেকে বিজয়ী হয়ে লোকসভার সাংসদ নির্বাচিত হয়েছেন। সম্প্রতি তার বিয়ে হয়েছে। আর মঙ্গলবার নুসরাতকে সংসদে দেখা গেল ভারতীয় পরম্পরা অনুযায়ী শাড়ি পড়তে এবং তার সঙ্গে অবশ্যই ছিল শাখা পলা এবং সিঁদুর। মঙ্গলবার মিমি কেও ভারতীয় পোশাকেই দেখা যায় সংসদে ।যদিও লোকসভা ভোটের ফলাফল প্রকাশের পর মিমি এবং নুসরাত সংসদে গিয়ে নিজেদের সংসদের পরিচয় পত্র সহ একটি ছবি পোস্ট করেছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায় ।মুহূর্তে তা ভাইরাল হয় এবং নুসরাত মিমি দুজনেই পশ্চিমী পোশাকে থাকায় তা নিয়ে বেশ কিছুটা সমালোচনাও হয়।

তবে সমস্ত সমালোচনার উর্ধ্বে গিয়ে দেখার বিষয় এটাই, নবাগত সাংসদ মিমি চক্রবর্তী মানুষের জন্য কি কি উদ্যোগ নেন এবং চলচ্চিত্র জগতের মতন তিনি দক্ষ হাতে রাজনীতিকে সামলাতে পারেন কিনা।

No comments:

Post a comment