Trending

Sunday, 9 June 2019

১৮ বছর হলেই গলায় নামবে তলোয়ার





কালরাত্রি যেন দরজার কাঠগড়ায় ধীরে ধীরে এগিয়ে আসছে। জল্লাদের তলোয়ার অপেক্ষায় রয়েছে আরবের একে কিশোরের ঘাড়ে পড়ার জন্য। তারপর রাজপথে লুটিয়ে পড়বে মুর্তজা নামের সেই  রাষ্ট্রদ্রোহী কিশোরের মাথাটি।



হ্যাঁ  ঠিকই শুনেছেন, ২০১১ সালের ঘটনা সেই সময়  প্রবল গণ আন্দোলন চলছিল সৌদি আরবে৷ সৌদি রাজতন্ত্র পরিচালিত নির্যাতনের প্রতিবাদে এবং দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য মুর্তাজা কুরেইরিস ও তার বন্ধুরা সাইকেল মিছিল করেছিল৷ দেশের পূর্ব প্রান্তে সেই মিছিল করার সময় সরকারের নজরে আসে তার গতিবিধি৷ তারপর থেকেই মুর্তাজার নাম ছিল পুলিশের খাতায় ৷ তিন বছর এমন পর্যবেক্ষণ চলে৷ এরই মাঝে ১৩ বছর বয়স হলে গোপনে সৌদি আরব থেকে প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাহারিনে পালিয়ে যাওয়ার সময় পরিবারের অন্যান্যদের সঙ্গে ধরা পড়ে মুর্তাজা৷ সৌদি আরবের ইতিহাসে সবচেয়ে কনিষ্ঠতম রাজনৈতিক বন্দি হিসেবে মুর্তাজাকে নিয়ে যাওয়া হয় জেলখানায় ৷নাবালক হিসেবে সৌদি সরকার কোনওভাবেই এই বিদ্রোহীকে চরম শাস্তি দিতে পারেনি ৷ অগত্যা জেলে রেখেই তার সাবালক হওয়ার অপেক্ষা করা হয়েছে৷ জানা গিয়েছে, চার বছর জেলে রয়েছে মুর্তাজা ৷ সদ্য ১৮ বছরে পা রাখতে চলেছে মুর্তজা ৷ এর পরেই তাকে চরম রাষ্ট্রদ্রোহী হিসেবে চিহ্নিত করে কোতল করার পালা ৷ সেই লক্ষ্যে সরকার আইনি পদক্ষেপ শুরু করেছে৷



সরকারের দাবি, জেরায় সব স্বীকার করেছে মুর্তাজা৷ যদিও মুর্তাজার পরিবারের অভিযোগ, প্রবল অত্যাচার চালিয়ে জোর করে স্বীকারোক্তি আদায় করা হয়েছে৷ বিচারের নামে প্রহসন চালানো হয়েছে৷ মুর্তাজার কি ফাঁসি হবে ? নাকি তার শিরচ্ছেদ করা হবে প্রকাশ্যে ? ভয়ঙ্কর সেই শাস্তির পদ্ধতি নিয়ে চলছে জল্পনা৷ ততই বাড়ছে উদ্বেগ৷ মানবাধিকার সংগঠনগুলি সোচ্চার হতে শুরু করেছে৷

No comments:

Post a comment