Trending

Sunday, 14 July 2019

উপস্থিত বুদ্ধির জোরে ফেরালেন অপহৃত স্বামীকে




বিপদের সামনে ঘাবড়ে না গিয়ে নিজের উপস্থিত বুদ্ধি খাটিয়ে অপহরণ হয়ে যাওয়া স্বামীকে ঘরে ফেরালেন স্ত্রী। বারুইপুর জেলা পুলিশ তাকে মালদা থেকে উদ্ধার করে। ইতিমধ্যে ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে দু'জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের খোঁজে তল্লাশি চলছে। শুক্রবার তাদের মহকুমা আদালতে পেশ করে নিজের হেফাজতে নেয় পুলিশ।

সোনারপুরের সাহেব পাড়ার বাসিন্দা অশোক রায় মেট্রো রেলে র  সুপারভাইজার পদে কাজ করেন। বারুইপুর জেলা পুলিশ সূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী, 6 ই জুলাই রাতে তিনি এক বন্ধুর কাছ থেকে স্টোন কেনার জন্য মালদায় এসেছিলেন। 

কিন্তু বন্ধুকে ফোনে না পেয়ে 7 ই জুলাই তিনি বাজারের দিকে রওনা হন আম কেনার জন্য। অশোক রায়ের সঙ্গে তার আরেক সহকর্মী বিশ্বজিৎ ওরাও আম কিনতে বাজারে যাচ্ছিলেন। কিন্তু বাজারে যাওয়ার জন্য তিনি একটি গাড়িতে উঠলে গাড়িটি তাকে বাজারের দিকে না নিয়ে গিয়ে অন্য দিকে নিয়ে চলে যায়। এরপর তাকে মারধোর করে তার জিনিসপত্র সব কেড়ে নেওয়া হয়। অশোক বাবু গাড়ি থেকে নামতে চাইলে তাকে বন্দুকের বাট দিয়ে মারা হয়। তারপর তাকে একটি মাঠে আটকে রাখা হয়।

এরপর 7 ই জুলাই রাতে 10 লক্ষ টাকা মুক্তিপণ চেয়ে অপহরণকারীরা ফোন করে অশোকবাবু স্ত্রীকে। ঘটনার কথা শুনে প্রথমে ঘাবড়ে গেলেও পরে নিজেকে সামলে নেন তিনি। অভিযোগ জানান সোনারপুর থানায়। এরপর সোনারপুর ও বারুইপুর জেলা পুলিশের যৌথ সহায়তায় ঘটনাটি তদন্ত শুরু হয়। পুলিশের সাহায্য নিয়েই অশোক বাবুর স্ত্রী অর্চনা দেবী অপহরণকারীদের সঙ্গে যোগাযোগ করে, তাদের কথামতো 11 ই জুলাই  মালদা রওনা হন।

মুক্তিপণের টাকা দেবার জন্য একটি নির্দিষ্ট জায়গায় অর্চনা দেবী কে আসতে বলে অপহরণকারীরা ।এখানে আসলে পুলিশের জালে ধরা পড়ে ইশারা উদ্দিন শেখ এবং বিল্লাল শেখ। অশোক রাওকে উদ্ধার করা গেলেও বিশ্বজিৎ ওরাও পালিয়ে গেছে। তার খোঁজে তল্লাশি চলছে।

No comments:

Post a comment