Trending

Wednesday, 10 July 2019

এখনই ভাঙ্গা হচ্ছে না পোস্তা উড়ালপুলের বিপদজনক অংশ



2016 সালের 31 শে মার্চ দুপুরে আচমকা ভেঙে পড়েছিল পোস্তা উড়ালপুল নির্মীয়মান বিবেকানন্দ সেতুর একাংশ। প্রথমে স্থানীয় বাসিন্দারা প্রচন্ড জোরে আওয়াজ শুনতে পান। তার পরেই চিৎকার ,আতঙ্ক আর হুলস্থুল। 27 জন মানুষের প্রাণহানি ঘটে ।আহত হন প্রায় ১০০ র  কাছাকাছি মানুষ। গণেশ টকিজ এ বিবেকানন্দ রোডের উপর আচমকা ভেঙে পড়েছিল পোস্তা উড়ালপুল। ঘটনার পর তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। জরুরি বৈঠক ডাকা হয় নবান্নে। খড়গপুর আইআইটির 3 বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক এবং রাজ্যের তৎকালীন মুখ্য সচিব বাসুদেব বন্দ্যোপাধ্যায় ছিলেন তদন্ত কমিটিতে।

তাদের পেশ করা রিপোর্ট অনুযায়ী পোস্তা উড়ালপুলের ভেঙে পড়া অংশ বাদ দিয়ে বাকি অংশ বিপদজনক তাই সেটাও ভেঙে ফেলতে হবে। রাইটস রাজ্যের হাই পাওয়ার্ড কমিটিকে এই রিপোর্ট পেশ করে। নকশা ও নির্মাণকাজে ভুলের কথা বলা হয় খড়গপুর আইআইটির রিপোর্টে। তাদের মতে প্রথমত নকশায় ভুল ছিল। তারপরে অত্যন্ত নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করা হয়েছিল ।সেই সামগ্রী গুলির গুণগত মান যাচাই করা হয়নি। উড়ালপুলে স্লাপগুলো ঠিকমতো জোড়াও লাগেনি। তাই ভাঙ্গা অংশ নতুন করে গড়তে যাওয়া বিপদের ।তাই সম্পূর্ণ সেতুটিকে ভেঙে ফেলে নতুন সেতু তৈরি করতে হবে।অবশেষে ঘটনার প্রায় তিন বছর বাদে পোস্তা উড়ালপুলের বিপদজনক সেতু ভাঙার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল রাজ্য সরকার।

আর যাতে কোন বিপর্যয় সেতু ভেঙে না হয় সেই কারণেই এই বিপদজনক অংশকে ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল ।সোমবার রাত আটটা থেকে কাজ শুরু হবার কথা ছিল। বলা হয়েছিল গোটা সেতুটা এখনই ভাঙ্গা হবে না। শুধুমাত্র বিপদজনক অংশটুকু ভাঙ্গা হবে। তবে শেষ মুহূর্তে সিদ্ধান্ত বদল হয়। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় আগামী 10 ই জুলাই কলকাতা পুলিশ কে এম ডি এ এবং কলকাতা পুরসভা একসঙ্গে ঘটনাস্থলে যাবে তারপরই নির্দিষ্ট করা হবে কবে থেকে সেতু ভাঙার কাজ শুরু হবে। 

No comments:

Post a comment