Trending

Tuesday, 10 September 2019

অশান্তি চলছে কাশ্মীর এবং আসামে




 370 ধারা বাতিলের পর পেরিয়ে গেছে অনেকগুলো দিন।কিন্তু এখনো জম্মু-কাশ্মীরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়নি।চালু করা যায়নি ইন্টারনেট পরিষেবা এবং যোগাযোগ ব্যবস্থা। এবার  রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার কাউন্সিলের প্রধান এই নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করলেন।

 সম্প্রতি জেনেভায় রাষ্ট্রসঙ্ঘের হিউম্যান রাইটস কমিশনের প্রধান মিস্টার ব্যাচেলট যথেষ্ট উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন কাশ্মীরের পরিস্থিতি নিয়ে।তিনি বলেন বহু মানুষ জাতীয় নাগরিকপঞ্জি নিয়ে একটা অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন।যত দ্রুত সম্ভব এই সমস্যার সমাধান করা উচিত।

 কাশ্মীরে 370 ধারা বিলোপ এর পর থেকে সমগ্র আন্তর্জাতিক মহলকে নিজের পাশে পেয়েছিল ভারত।কিন্তু একমাসের বেশি সময় পেরিয়ে যাওয়ার পরেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় এবার ভারতের  দিকে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।এখনো শান্তিপূর্ণভাবে কোনো সভা-সমাবেশএ  বিধি-নিষেধ,  ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ হওয়া, রাজনৈতিক নেতাদের আটকে রাখা এবং কাশ্মিরিদের মানবাধিকার নিয়ে ভারত সরকারের বর্তমান পদক্ষেপে খুশি নয় রাষ্ট্রসংঘ।

 মিস্টার ব্যাচেলেট ভারত এবং পাকিস্তান দুই দেশকেই মানবাধিকার রক্ষায় উদ্যোগী হতে আবেদন জানিয়েছেন।ভারতের কাছে তিনি আর্জি জানিয়েছেন কাশ্মীরে লাগু থাকা বিধি-নিষেধ এবং কারফিউ যেন যত দ্রুত সম্ভব তুলে নেওয়া হয় l কাশ্মীরের মানুষ যাতে ন্যূনতম নাগরিক পরিষেবার সুযোগ পান। 

 কাশ্মীরে পাশাপাশি তিনি আসাম নিয়ে যথেষ্ট চিন্তিত।অসময়ে এনআরসি নিয়ে যে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে তা নিয়ে তিনি যথেষ্ট উদ্বিগ্ন।31 শে আগস্ট প্রকাশিত ওই চূড়ান্ত নাগরিক তালিকা থেকে 19 লক্ষ মানুষ বাদ পড়ে গেছেন।তাই ভারত সরকারের কাছে তার অনুরোধ কোন মানুষ যেন রাষ্ট্রহীন না হয়ে পড়ে।অযথা যেন কাউকে আটক না করা হয়। 

No comments:

Post a Comment