Trending

Wednesday, 4 September 2019

15000 এর স্কুটি চালিয়ে 23000 এর জরিমানা



গোটা দেশে সম্প্রতি চালু হয়েছে নতুন ট্রাফিক আইন।ট্রাফিক আইনে আর্থিক জরিমানা বেশ অনেকটাই বাড়ানো হয়েছে।তবে তা যে কতটা মারাত্মক সেটা বেশ ভালোই বুঝতে পারছেন দিল্লির গুরুগ্রামের বাসিন্দা দীনেশ মদন। 

হেলমেট ছাড়া স্কুটি চালানোর অপরাধে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।এরপর দেখা যায় তার কাছে স্কুটির প্রয়োজনীয় নথিপত্র নেই।ব্যস আর যায় কোথায়?সমস্ত কিছু মিলিয়ে পুলিশ দীনেশ মদনকে 23 হাজার টাকার একটি চালান বিল ধরিয়ে দেয়। 

ট্রাফিক পুলিশের তরফে যে যে কারণে জরিমানা করা হয়েছে সেগুলি হল -

১.ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকার জন্য 5000 টাকা।
২. রেজিস্ট্রেশন এর কাগজ না থাকার জন্য 5000 টাকা।
৩. থার্ড পার্টি ইন্সুরেন্স না থাকার জন্য 2000 টাকা।
৪. হেলমেট না পরার জন্য ১০০০ টাকা। 
৫.এবং বায়ুদূষণ সার্টিফিকেট না থাকার জন্য ১০০০ টাকা।

 দীনেশ জানিয়েছেন তিনি হেলমেট ছাড়া স্কুটি চালাচ্ছিলেন ঠিকই, এবং এটাও ঠিক যে তার কাছে ওই সময় প্রয়োজনীয় নথি গুলি ছিল না।পুলিশের সঙ্গে তার এই নিয়ে  তর্ক বাঁধে। পুলিশ প্রথমে তার স্কুটির চাবি কেড়ে নিতে চায়।তার পর পুলিশ তাকে বলে 10 মিনিটের মধ্যে সমস্ত কাগজপত্র পেশ করতে।তিনি জানান এটা তার কাছে একেবারেই অসম্ভব। তারপরেই এই 23 হাজার টাকার বিল তাকে ধরানো হয়। 

এই ঘটনায় পিছনে অন্য ইঙ্গিত দেখছে  বুদ্ধিজিবিরা।তাদের মতে যদি এইভাবে ট্রাফিক আইন চলতে থাকে তাহলে সরকার রিজার্ভ ব্যাংক থেকে যে টাকা ধার নিয়েছে খুব তাড়াতাড়ি সেই টাকা উঠে আসবে।তাহলে কি এইভাবে অর্থনীতি  তৈরি করতে চাইছে মোদি সরকার? 

No comments:

Post a Comment