Trending

Saturday, 28 September 2019

রাষ্ট্রসঙ্ঘের মঞ্চ থেকেই পরমাণু যুদ্ধের হুঁশিয়ারি দিল পাকিস্তান



ভারত রাষ্ট্রসঙ্ঘের মঞ্চে দাঁড়িয়ে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কিছুই বলেনি।এমনকি নরেন্দ্র মোদি তার পুরো বক্তৃতায় একবারও পাকিস্তানের নাম উল্লেখ করেননি যদিও পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ঠিক তার উল্টো কাজ করলেন,ভারতের প্রতি সমস্ত ঘৃণা এবং বিদ্বেষ উগরে দিলেন রাষ্ট্রসঙ্ঘের মঞ্চে।প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং আরএসএসকে ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ করেন তিনি।পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নিজের নির্ধারিত সময় 15 মিনিট ছাড়িয়ে আধঘন্টা ধরে শুধুমাত্র ভারতবিদ্বেষী কথাই বলে গেলেন।রাষ্ট্রসঙ্ঘের মঞ্চে দাঁড়িয়ে তিনি পরোক্ষভাবে পরমাণু যুদ্ধের হুঁশিয়ারি দিলেন।যদিও এর আগে তিনি পরমাণু যুদ্ধের কথা বলেছেন।তবে রাষ্ট্রসঙ্ঘের মঞ্চে দাঁড়িয়ে তিনি এমন কথা বলতে পারেন এটা ভাবেনি কেউই।

 রাষ্ট্রসঙ্ঘের সভায় দাঁড়িয়ে তিনি স্পষ্ট হুঁশিয়ারি দেন আমি কোনো হুমকি দিচ্ছি না,কিন্তু আন্তর্জাতিক মহলকে ভাবতে হবে যে তারা 130 কোটির বাজারকে সমর্থন করবে নাকি নিরীহ নাগরিকদের পাশে দাঁড়াবেন? কারণ যদি দুটি পরমাণু শক্তিধর দেশ যুদ্ধে লিপ্ত হয় তার প্রভাব গোটা বিশ্বে পড়বে।

 মোদী সম্পর্কে তিনি বলেন মিস্টার মোদী আজীবন হিটলার-মুসোলিনিরও আদর্শে অনুপ্রাণিত।এ আদর্শেই তিনি 2002 সালে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন হিন্দু মুসলিমের দাঙ্গা বাধিয়ে ছিলেন।কাশ্মিরে কারফিউ নিয়ে তিনি বলেন কাশ্মিরে কারফিউ তুলে সেখানে রক্তের বন্যা বইবে।বালাকোট এর প্রসঙ্গে তিনি বলেন সেখানে দশটা গাছের ক্ষতি ছাড়া আর কিছুই হয়নি,অথচ তারা রটিয়ে বেড়াচ্ছে যে দেড়শো জন জঙ্গীকে তারা মেরেছে।ওদের একজন পাইলট আমাদের এখানে ধরা পড়েছিল আমরা তাকে মুক্তি দিয়েছি।

আন্তর্জাতিক মহলের বক্তব্য ইমরানের এইরূপ ভারতবিদ্বেষী মন্তব্যে আদতে ভারতেরই লাভ,কারণ যেখানে ভারত উদারতার বক্তব্য প্রচার করছে সেখানে পাকিস্তান এমন জাতিবিদ্বেষ গত বক্তব্য পেশ করায়  আন্তর্জাতিক মহলে সে নিজেই কোণঠাসা হয়ে পড়বে।


No comments:

Post a comment