Trending

Thursday, 26 September 2019

আবারো এনআরসির কারণে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটলো



ময়নাগুড়ির অন্নদা  রায়  আত্মহত্যা করেছেন এনআরসি আতঙ্কে।মঙ্গলবার তার বাড়ি গিয়েছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস।তার পরিবার দাবি করেন এনআরসি নিয়ে আতঙ্কে তিনি আত্মঘাতী হয়েছেন।তার বাড়িতে অরূপ বিশ্বাস থাকাকালীনই খবর আসে যে জলপাইগুড়ি ধুপগুড়িতে আত্মঘাতী হয়েছেন 39 বছরের এক ভ্যানচালক শ্যামল রায়, তার কিছুক্ষণ পরে সাবের আলী নামক 32 বছর বয়সী এক ব্যক্তি  কুয়োয় ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করে।জেলা সদরসহ কোচবিহারে আরজিনা বিবি নামের 27 বছর বয়সী এক মহিলা আত্মহত্যা করেন।অন্যদিকে দিনহাটায় 44 বছর বয়সী শামসুল হক হূদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান।সমস্ত মৃত্যুর ঘটনা গুলি পিছনেই রয়েছে এনআরসি আতঙ্ক।

কোথাও দেখা গেছে কেউ ভোটার কার্ড হারিয়ে ফেলেছিলেন,তো কেউ অন্যান্য নথিপত্র খুঁজে পাচ্ছিলেন না, কারুর আবার রেশন কার্ডে এক নাম তো ভোটার কার্ডে আরেক।এই সমস্ত কিছু নিয়ে আতঙ্কে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন মানুষ। 

কোচবিহারের আর্জিনা বিবির বিভিন্ন নথিতে বিভিন্ন নাম ছিল।এই নিয়ে তার স্বামীর সঙ্গে তার কথা কাটাকাটি হয় তারপরে তিনি আত্মঘাতী হন।

 ধুপগুড়ির ভ্যানচালক শ্যামল রায় ভোটার কার্ড হারিয়ে আতঙ্কে ভুগছিলেন,  তিনি ভোটার কার্ড খোঁজার চেষ্টা চালাচ্ছিলেন ক'দিন ধরে তারপরে এই ঘটনা।সাবের আলীর ক্ষেত্রেও একই ঘটনা। 

 দিনহাটা শামসুল হক বিভিন্ন নথিপত্র খোঁজার চেষ্টা করছিলেন কয়েকদিন ধরে।এই নিয়ে কয়েকটি তিনি বেশ ছোটাছুটি ও করেন অবশেষে মঙ্গলবার তিনি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন,  তারপরে হূদরোগে আক্রান্ত হয়ে তার মৃত্যু হয়। 

এনআরসি আতঙ্কে এত মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক জটিলতা।রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর নামে এফআইআর দায়ের করা উচিত।কেউ দুর্ঘটনায় বা ঋণগ্রস্ত হয়ে মারা গেলেও তিনি এনআরসি  জন্য  মৃত্যু হয়েছে  বলে চালিয়ে দিচ্ছেন।এদিকে রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস জানান সমস্ত ঘটনার জন্য দিলীপ ঘোষ নিজেই দায়ী।কারণ এনআরসি আতঙ্ক রাজ্যের মানুষের মধ্যে তিনিই ছড়িয়েছেন। 

No comments:

Post a comment