Trending

Friday, 20 September 2019

বিক্ষোভকারীদের সুরে গান গাইতে বলেন বাবুল



 বৃহস্পতিবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের সংঘ পরিবারের ছাত্রসংগঠন নবীন বরণের আয়োজন করেছিল।সেই উপলক্ষে একটি আলোচনা সভায় আমন্ত্রিত ছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়।কিন্তু এদিন দুপুরে বাবুল সুপ্রিয় বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে পৌঁছাতেই অতিবাম সমর্থক ছাত্রছাত্রীরা  তার উপর বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। 

 গো ব্যাক স্লোগান দিয়ে তার পথ আটকানো হয়,  কিন্তু তাতে কিছু হয়নি,  কেন্দ্রীয় মন্ত্রী  অনুষ্ঠানস্থলে দিকে এগোতে থাকেন।তখন তাকে ঘিরে শুরু হয় শারীরিক নিগ্রহ,  কিল-ঘুষি এমনকি চুলের মুঠি ধরে টানার ঘটনাও দেখা গেছে সংবাদমাধ্যমের ক্যামেরায়।

 অনেকক্ষণ আটকে থাকার পর সন্ধ্যে ছটা নাগাদ ডাক্তার পিকে বসু মেমোরিয়াল হল থেকে কোনরকমে বেরুতে পারেন বাবুল সুপ্রিয়।তখনো তাকে ধাওয়া করে বিক্ষোভরত ছাত্রছাত্রীরা। সামনে ছিল একটি মিডিয়ার ওবি ভ্যান।বাবুল সুপ্রিয় প্রায় দৌড়ে সেই ওবি ভ্যান এর উপর চড়ে বসেন।তখন সেখানে উপস্থিত হয় বিক্ষোভরত ছাত্রছাত্রীরা। 

 কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কে ঘিরে তারা স্লোগান দিতে থাকে, গান আরম্ভ করে।বাবুল  তাদের সঙ্গে তালি দিয়ে বলেন,  তোমরা সুরে গাও, বাংলা গান গাও, আমি তোমাদের সঙ্গে গান গাইবো।এমনকি যদি তোমরা চাও আমি আমার গান গাওয়ার পয়সায় তোমাদের কে  সিঙ্গারা খাওয়াবো।এতক্ষণ বিক্ষোভে আটকে থাকার পরেও তিনি ধৈর্য হারান নি।কখনো ছাত্রছাত্রীদের শান্ত হতে বলেছেন, আবার কখনো বলেছেন তোমাদের যা অভিযোগ সব দিদিকে বল।এই বিক্ষোভের ভিতর থেকে বেরোবার জন্য তিনি নিজের নিরাপত্তারক্ষীর  সাহায্য নিতে চাননি।তার কথায় তার  নিরাপত্তার  দায়  রাজ্যের পুলিশের,  তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পুলিশকে এসে তাকে উদ্ধার করতে হবে। 

 রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে অন্য কোন মন্ত্রী হলে এতক্ষণে তিনি ধৈর্য হারিয়ে হয়তো কোন কান্ড ঘটিয়ে বসতেন, তাতে পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যেত।কিন্তু বাবুল সুপ্রিয় যেভাবে ঠান্ডা মাথায় পুরো পরিস্থিতি সামলালেন  তাতে  বাবুল সুপ্রিয় ওপর মোদি অমিতের ভরসা আরো বেড়ে গেল।

No comments:

Post a comment