Trending

Wednesday, 22 July 2020

দিদি করোনাকে হারিয়ে বাড়ি ফেরার পর রাস্তার মধ্যে গান চালিয়ে তুমুল নাচ ছোট বোনের, ভিডিও দেখে আবেগ ধরে রাখতে পারবেন না



করোনাকে হারিয়ে যখন কেউ বাড়ি ফেরে তখন রোগীর বাড়ির সদস্য আর প্রতিবেশীরা হাততালি দিয়ে তাঁকে স্বাগত জানায়। যদিও অনেক ক্ষেত্রে করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হওয়া রোগী এবং টার পরিবারের সাথে অছ্যুৎ-এর মতো ব্যবহারও করা হয়। আর এরকমই একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় আজকাল খুব ভাইরাল হচ্ছে, যেখানে দেখা যাচ্ছে যে, করোনাকে হারিয়ে বাড়ি ফেরা দিদির জন্য তাঁর বোন বাড়ির সামনে গান বাজিয়ে তুমুল নাচছে। এই ভিডিও অনেকেরই মন কেড়েছে। আপনাদের জানিয়ে দিই, এই ভিডিও পুনের ধনকবডি এলাকার।
পুনের ধনকবডি এলাকার বাসিন্দা সাতপুতে পরিবারে ২০ দিন আগে করোনার লক্ষণ দেখা দিয়েছিল। শোনা যায় যে, পরিবারের সবথেকে ছোট মেয়ে সালোনিকে বাদ দিয়ে সবাই হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। দুইদিন আগে সালোনির বড় বোন যখন করোনাকে হারিয়ে বাড়ি ফেরেন, তখন পরিবারের মধ্যে খুশির জোয়ার আসে। আর বাড়ির সামনে গান বাজিয়ে ড্যান্সও করা হয়। ভিডিওতে টিশার্ট পরে যেই মেয়েটিকে নাচতে দেখা যাচ্ছে, তাঁর নাম সালোনি। আর তাঁর দিদি সালোনির আনন্দ দেখে নিজেকে আটকাতে না পেরে নাচ শুরু করে দেয়।
সালোনি ইঞ্জিনিয়ারিং এর তৃতীয় বছরের ছাত্রী আর মারাঠি টিভি সিরিয়াল এবং মারাঠি বিগ বসেও অংশ নিয়েছিল। সালোনি জানায়, তাঁকে বাদ দিয়ে পরিবারের সমস্ত সদস্য বিগত ২০ দিন ধরে হাসপাতালে ভর্তি। সালোনি প্রতবেশিদের সাহায্য নিয়ে গত তিন সপ্তাহ ধরে বাড়িতে একা ছিল। এক সপ্তাহ আগে যখন তাঁর বাবা করোনাকে হারিয়ে বাড়ি ফেরে, তখন সালোনি শুধু মোবাইলে গান বাজিয়েছিল। দুইদিন পর যখন তাঁর এক দিদি আর মা করোনাকে হারিয়ে বাড়ি ফেরে, তখন সালোনি ঘরের মধ্যেই ড্যান্স করেছিল।
কিন্তু সম্প্রতি যখন তাঁর বড় দিদি করোনাকে হারিয়ে বাড়ি ফেরে, তখন সালোনি আর নিজেকে আটকাতে পারেনি। সালোনি নিজের বড় বোনকে দেখে এতটাই খুশি হয়ে গেছিল যে, সে বাড়ির সামনে গান বাজিয়ে ড্যান্স শুরু করে দেয়। সালোনি আর তাঁর দিদির ড্যান্সের ফ্যান হয়ে যায় নেটিজেনরা।

No comments:

Post a comment